ধর্ষণ এক ধরনের সন্ত্রাস। ধর্ষণ, হত্যার সঙ্গে জড়িত কোনো অপরাধীকে সরকার কখনো ন্যূনতম ছাড় দেয়নি। ধর্ষণকে রাজনৈতিক ট্যাগ দিয়ে ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করলে বিচার বাধাগ্রস্ত হতে পারে।

মঙ্গলবার (৬ অক্টোবর) রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে সম্পাদকমণ্ডলীর সভায় বক্তব্যে এ কথা বলেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, ধর্ষণের বিরুদ্ধে সামাজিক প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে। সামাজিকভাবে চিহ্নিত সন্ত্রাসী যাতে দলে স্থান না পায় সেদিকে সতর্ক থাকতে হবে।

ওবায়দুল কাদের বলেন, অপরাধী যত বড় নেতাই হোক তাকে বিচারের আওতায় আনা হবে। সরকার স্বঃপ্রণোদিত হয়ে সব অপরাধের বিরুদ্ধে বিচার কার্যক্রম শুরু করেছে। কারও প্রতি সরকার পক্ষপাত দেখায়নি।