অসাধু ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে অবস্থান নিতে ভোক্তাদের সোচ্চার হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন বানিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি। তিনি বলেন, ব্যবসায়ীরা লাভ করবে কিন্তু লোভ যেন তারা না করেন।

এজন্য আমাদের সবাইকে সচেতন হতে হবে নিজেদের অধিকার সম্পর্কে এবং সে লক্ষ্যে কাজও করতে হবে বলে জানান তিনি।
মঙ্গলবার (১৫ মার্চ) বিকেলে ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে বিশ্ব ভোক্তা অধিকার দিবস ২০২২ উপলক্ষে আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব তপন কান্তি ঘোষের সভাপতিত্বে সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন শিল্প মন্ত্রণালয়ের সচিব জাকিয়া সুলতানা, এফবিসিসিআইয়ের সভাপতি মো. জসিম উদ্দিন, কনজুমার অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের সভাপতি গোলাম রহমান। সভায় স্বাগত বক্তব্য দেন জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক এ এইচ এম সফিকুজ্জামান।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেন, ভোক্তা অধিকার আইনটি সবাইকে জানতে হবে, যাতে তারা জানতে পারেন তাদের কী অধিকার আছে। তা না হলে ভোক্তা অধিকার নিশ্চিত করা সম্ভব হবে না। এজন্য অধিদপ্তর এবং ক্যাবকে দাযিত্ব পালন করতে হবে। ভোক্তাদের অধিকার নিশ্চিত করতে হলে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরকে উদয়াস্ত কাজ করতে হবে। আমাদের প্রধানমন্ত্রীও উদয়াস্ত কাজ করে চলেছেন এ দেশের মানুষের ভাগ্য পরিবর্তনের জন্য। প্রতিটি ক্ষেত্রে তিনি নির্দেশনা দিয়ে থাকেন। তিনি বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন ও আর্দশ ধারণ করে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন।

অসাধু ব্যবসায়ীদের উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, ব্যবসায়ীদের সততার সাথে কাজ করতে হবে। দ্রব্যমূল্যের বৃদ্ধির এ সময়ে অসাধুব্যবসায়ীরা মাথা উঁচু করছেন, নাড়া চাড়া দিয়ে উঠছেন। এজন্য ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরকে আরও সচেতন হতে হবে। একই সঙ্গে সাধারণ মানুষকে বড় ভূমিকা পালন করতে হবে। তাদেরও মনে করতে হবে, আমরা এই অধিদপ্তরের একজন, আমাদের অধিকার প্রতিষ্ঠা করবই।

ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক এ এইচ এম সফিকুজ্জামান বলেন, তেলের সরবারহ নিশ্চিত করার জন্য তেল রিফাইনারি শিল্পে অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে। পাশাপাশি গুনগতমান পরীক্ষার জন্য একটি ল্যাব প্রয়োজন।

এফবিসিসিআই এর সভাপতি মো. জসিম উদ্দিন বলেন, নিত্যপণ্যের দাম বাড়ার কারণগুলো চিহ্নিত করে সমাধান করতে হবে। ব্যবসায়ীরা অসৎ উপায় অবলম্বন করলে ব্যবস্থা নিতে হবে। আমি ব্যবসায়ী নামে যারা কলঙ্ক তাদের নেতৃত্ব দেই না।

ক্যাব সভাপতি গোলাম রহমান বলেন, আমাদের দেশের ভোক্তারা সংগঠিত নয়। তাদের অধিকার সম্পর্কে সচেতনও নয়। এখন ভোক্তাদের দুঃসময় চলছে। সাধারণ, নিন্ম, মধ্য সব শ্রেণির মানুষ দ্রব্যমূল্যে নিষ্পেষিত। আমাদের ভোক্তারা যখন প্রতারিত হয়, তখন তাকে ভাগ্য বলে বিবেচনা করলেও বর্তমানে প্রতারিত ভোক্তা প্রতিকার পাচ্ছে।

শিল্প সচিব জাকিয়া সুলতানা বলেন, রমজানে ব্যবসায়ীদের মুনাফা করার জন্য নয়, সেবাদানের মানসিকতা নিয়ে এগিয়ে আসতে হবে। তাদের দেশের প্রচলিত আইন মেনে ব্যবসা পরিচালনা করতে হবে।