দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে রোডম্যাপ তৈরির জন্য বিভিন্ন মহলের সঙ্গে সংলাপ শুরু করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। এরই মধ্যে শিক্ষক-বুদ্ধিজীবীদের সঙ্গে বৈঠকে বসেছেন সিইসি কাজী হাবিবুল আউয়ালসহ অন্য কমিশনাররা। ধারাবাহিকভাবে সমাজের বিভিন্ন শ্রেণির বিশিষ্ট ব্যক্তিদের সঙ্গেও বসবে ইসি। আগামী ২২ মার্চ সংলাপ করবে সুশীল সমাজের ব্যক্তিদের সঙ্গে।
ইসি সূত্র জানায়, ওই দিন বেলা এগারোটায় জাতীয় নির্বাচন ভবনে সংলাপটি অনুষ্ঠিত হবে। এরই মধ্যে আমন্ত্রণপত্র পাঠানো শুরু হয়েছে। এই সংলাপে স্থানীয় সরকার বিশেষজ্ঞ তোফায়েল আহমেদ, সুশাসনের জন্য নাগরিক-সুজন সম্পাদক ড. বদিউল আলম মজুমদার, সাবেক সচিব আবু আলম মো. শহিদ খানসহ ৪০ জনকে আমন্ত্রণ জানানো হবে।


ইসির যুগ্ম সচিব এসএম আসাদুজ্জামান বলেন, ‘২২ মার্চ সুশীল সমাজের প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠক হবে। এ ব্যাপারে প্রস্তুতি চলছে।’

গত রোববার ৩০ শিক্ষাবিদের সঙ্গে সংলাপের আয়োজন করেছিল ইসি। এতে ১৭ জন সংলাপে আসেননি। এ দিন ড. জাফর ইকবালসহ দুদকের আমন্ত্রণে আসেন ১৩ জন। তারা দলগুলোকে আস্থায় আনার উদ্যোগ গ্রহণ, ভোটার ও বিশেষজ্ঞদের মতামত নিয়ে ইভিএম ব্যবহার, দলগুলোর সব স্তরের কমিটিতে ৩৩ শতাংশ নারী সদস্য পদ পূরণে ব্যবস্থা গ্রহণ, ইসির নিজস্ব কর্মকর্তাদের রিটার্নিং কর্মকর্তা নিয়োগ, নির্বাচনের সময় আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীগুলোকে ইসির অধীন রাখাসহ একগুচ্ছ সুপারিশ করেন।

সংলাপে কমসংখ্যক প্রতিনিধি উপস্থিত হওয়ায় পরবর্তীতে আরও বেশি সংখ্যককে আমন্ত্রণ জানানো হবে বলে জানিয়েছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী হাবিবুল আউয়াল।

বিশিষ্ট নাগরিকদের পর আগামী ৩০ মার্চ গণমাধ্যমের প্রতিনিধিদের সঙ্গে সংলাপে বসবে সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানটি। পরবর্তী তারিখ এখনো নির্ধারণ করেনি কমিশন।

কাজী হাবিবুল আউয়াল কমিশনকে গত ২৬ ফেব্রুয়ারি নিয়োগ দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ। এরপরের দিন শপথ নিয়ে ২৮ ফেব্রুয়ারি থেকে অফিস শুরু করে নতুন কমিশন। তবে এখনো কোনো আনুষ্ঠানিক বৈঠক করেনি এই কমিশন। নিজেদের কার্যক্রম শুরু করার আগেই দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে বিভিন্ন মহলের সঙ্গে সংলাপ করছে ইসি