বরিশালের উজিরপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এস এম জামাল হোসেনকে বির্তর্কীত করতে বিভিন্ন অপপ্রচার চালিয়ে হেয়ও করার চেষ্টা করার অভিযোগ উঠেছে প্রতিপক্ষদের বিরুদ্ধে। জানাযায়, গত ০৯ নভেম্বর মঙ্গলবার পৌরসভার ০৭ নং ওয়ার্ডের এক গৃহবধু অসৈজন্যমূলক আচরনের শিকারের জবানবন্দিমূলক একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগে ভাইরাল করে স্থানীয় প্রতিপক্ষরা। সেই ভিডিওতে উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এস এম জামাল হোসেনের বিরুদ্ধে ওই গৃহবধুর সাথে অসৌজন্যমূলক আচরণের অভিযোগ করেন। পরবর্তীতে ওই গৃহবধু আরো একটি ভিডিওতে উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এসএম জামাল হোসেনকে ফাঁসাতে একদল দুর্বৃত্তরা ভয়ভীতি দেখিয়ে মিথ্যা প্রপাগন্ডা ও অপপ্রচার করার জন্য হুমকি দেয় বলে ওই ভিডিও তে স্বীকার করেন। সেখানে উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এস এম জামাল হোসেনকে পিতৃতুল্য বলেও সম্বোধন করেন ওই গৃহবধু। ওই গৃহবধুর পাল্টাপাল্টি ভিডিও নিয়ে বিব্রতকর পরিস্থিতিতে পড়েছেন স্থানীয় নিজ দলের নেতাকর্মীরা। এ বিষয়ে ওই গৃহবধু বলেন, একটি পক্ষ আমাকে ভয়ভীতি দেখিয়ে স্থানীয় কিছুলোকজন মিলে জামাল স্যারের বিরুদ্ধে অপপ্রচার করার জন্য জোর করেন। পরে তাদের ভয়ে জামাল স্যারের বিরুদ্ধে মিথ্যা কথা বলতে বাধ্য হয়েছি। যা আসলে সত্য নয়। পরবর্তীতে স্যারের কাছে গিয়ে আমি ক্ষমা চেয়েছি। জামাল স্যারের কাছে সত্য কথা বলায় এখন হুমকির মুখে আছি। তবে কারা তাকে হুমকি দিয়েছে জানতে চাইলে ওই গৃহবধু বলেন, আমি কারোর নাম বলতে পারবো না যদি তাদের নাম বলি তাহলে আমার অনেক বড় ক্ষতি হয়ে যাবে। এ ব্যাপারে উজিরপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মাদ কামরুল হাসান বলেন, আমার কাছে কোন পক্ষই অভিযোগ নিয়ে আসেনি। আসলে তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।