উজিরপুর প্রতিনিধি ঃ উজিরপুরে নির্বাচিত কাউন্সিলর ও পরাজিত কাউন্সিলর প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ। উভয় পক্ষ থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে। অভিযোগ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলর ও বর্তমান নির্বাচিত কাউন্সিলর মোঃ খায়রুল ইসলাম ও তার প্রতিদ্বন্ধি প্রার্থী মোঃ মিজান খলিফার সমর্থকদের মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষ হয়। এতে আহত ৩জনকে উজিরপুর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ২৯ ডিসেম্বর রাত সাড়ে ১০টায় খায়রুল ইসলামের সমর্থক ও ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ ইব্রাহিম খান(৫০) কে মিজান খলিফার সমর্থক বুলবুলসহ ৭/৮ জনে হামলা চালায়। এ সময় ইব্রাহিম আহত হয়ে উজিরপুর হাসপাতালে ভর্তি হয়। এ ঘটনা ছড়িয়ে পড়লে খায়রুল ইসলামের ২০/২৫ জন সমর্থক রাত সাড়ে ১১টায় লাঠিসোটা ও দা বটি নিয়ে মিজান খলিফার বাড়ির নিকটবর্তী ব্রীজের কাছে এসে তার সমর্থকদের উপর হামলা চালায়। এ সময় বুলবুল আহমেদ (২৬), সাগর খলিফা (১৮) গুরুতর আহত হলে উজিরপুর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ ব্যাপারে মিজান খলিফা বাদী হয়ে কাউন্সিলর খায়রুল ইসলামসহ ১২ জনকে আসামী করে অভিযোগ দায়ের করে। অপরদিকে আহত ইব্রাহিম খানের স্ত্রী খুরশিদা বেগম বাদী হয়ে ৫/৬ জনকে আসামী করে একটি অভিযোগ দায়ের করেন। তবে কাউন্সিলর খাইরুল ইসলাম জানান, নিজেদের মধ্যে একটু ভুল বোঝাবুঝি হয়েছে, উভয়ে আত্মীয় স্বজন। মেয়র মহোদয় বিষয়টি সমাধান করে দিবেন। মিজান খলিফা, আহত বুলবুল ও সাগর খলিফা জানান, কাউন্সিলর প্রার্থী নিজে দলবল নিয়ে তার কর্মী সমর্থকদের উপর হামলা চালিয়ে আহত করেছে। ইব্রাহিম খান জানান, আমি নৌকার সমর্থক, আমি কোন কাউন্সিলর নির্র্বাচন করি নাই। আমার উপর অহেতুক মিজানের সমর্থকরা হামলা চালিয়েছে।