জনবল কাঠামো ও নিয়োগবিধি বাস্তবায়নসহ ৫ দফা দাবিতে বরিশালের উজিরপুরে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরে (পিআইও) অফিসে চলছে কর্মবিরতি। এতে উপজেলার বিভিন্ন প্রান্ত থেকে সেবা নিতে এসে ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন মানুষজন। বৃহস্পতিবার সরজমিন গিয়ে দেখা যায়, সকাল ৮ টা থেকে উপজেলা বাস্তবায়ন কর্মকর্তার অফিসের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা কাজ বন্ধ রেখে বিকাল ৩ টা পর্যন্ত পূর্ন-কর্মবিরতি পালন করছেন। এসময় উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন থেকে পিআইও অফিসে সেবা না পেয়ে ফিরে যেতে দেখা গেছে সাধারণ মানুষদের। এমন অবস্থা চলছে সোমবার (১২ সেপ্টেম্বর) সকাল থেকে।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা অয়ন সাহা বলেন, ‘দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা আইন, ২০১২ কার্যকর হয়েছে প্রায় এক যুগ আগে। অথচ এর আওতায় কর্মরত জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা (ডিআরআরও) এবং উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তাদের (পিআইও) জনবলকাঠামো ও নিয়োগবিধি এখনো অনুমোদন হয়নি। পদ দুটির আপগ্রেডেশন প্রস্তাবও পড়ে আছে মন্ত্রণালয়ে। ফলে ডিআরআরও-পিআইওরা কাঙ্খিত আর্থিক সুবিধা পাচ্ছেন না।’তিনি আরও বলেন, ‘বন্যা, জলোচ্ছ্বাস, ঘূর্ণিঝড়, ভূমিকম্পসহ দেশের যেকোনো প্রাকৃতিক দুর্যোগ সাধারণ মানুষের জানমালের নিরাপত্তা ও ক্ষয়ক্ষতি লাঘব ও মানবিক সহায়তা ত্রাণ বিতরণে যারা দিনরাত অক্লান্ত পরিশ্রম করে তারা হলেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের কর্মকর্তা ও কর্মচারী। কিন্তু দুঃখের বিষয় বঙ্গবন্ধুর হাতে গড়া দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা ২০২২ সালেও অবহেলিত এবং বঞ্চিত। আর তাই দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে টিকিয়ে রাখার স্বার্থে ১২ থেকে ১৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত অর্ধদিবস কর্মবিরতি ছিল। এর ভিতর কোন পদক্ষেপ না নেয়ায় বৃহস্পতিবার থেকে সারাদিন ছিলো কর্মবিরতি।
অয়ন সাহা আরো বলেন, ‘আমাদের পাঁচটি যৌক্তিক দাবি নিয়ে অধিদপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারী কল্যাণ পরিষদ গত ৮/১০ বছর ধরে সুশৃঙ্খলভাবে আন্দোলন করে আসছে। তবে চলমান এই কর্মসূচির যৌক্তিক দাবিগুলো যদি আদায় না হয় তাহলে পরবর্তীতে আরো কঠোর কর্মসূচির ডাক দেওয়া হবে।