বরিশালের উজিরপুরে বৃদ্ধ বাবা-মাকে ১শত জুতাপিটা করার অভিযোগ উঠেছে দুই ছেলে ও পুত্রবধুর বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে গত শনিবার বিকালে উপজেলার হারতা ইউনিয়নের ০২নং ওয়ার্ডের কালবিলা গ্রামে। সন্তানের পিটুনিতে আহত মা স্বরস্বতী মন্ডল (৬০) উজিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। দুই সন্তান মাকে জুতাপেটা করা ও টেনে হিচরে বাড়ি থেকে বের করার একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগে ভাইরাল হয়েছে। স্বরস্বতী মন্ডল ওই গ্রামের বিষেশ্বর মন্ডলের স্ত্রী। মারধরের ঘটনায় ইউপি চেয়ারম্যানের কাছে অভিযোগ দেয়ায় গত শনিবার সন্ধ্যায় পুনরায় মাকেও বেধরকভাবে পিটিয়েছে দুই ছেলে অমল মন্ডল, শ্যামল ও পুত্রবধু মুক্তা মন্ডল।
আহত মা স্বরস্বতী মন্ডল বলেন, বড় ছেলে অমল মন্ডলের স্ত্রীর সাথে ছেলে বিমল মন্ডল, ও শ্যামল মন্ডলের অবৈধ মেলামেশার প্রতিপাদ করায় প্রায়ই আমাদেরকে মারধর করে। মারধরের ঘটনায় ইউপি চেয়ারম্যানের কাছে অভিযোগ দেয়ায় শনিবার সন্ধ্যায় আমাকে(মা) টেনে হিচরে বাড়ি থেকে বেড় করে দিয়ে ১শ জুতাপিটা করেছে দুই ছেলে অমল মন্ডল, শ্যামল মন্ডল ও পুত্রবধু মুক্তা মন্ডল। এসময় স্বামী বিষেশ্বর মন্ডল ফিরাতে গেলে তাকেও জুতাপিটা করেছে। হারতা ইউনিয়ন চেয়ারম্যান অমল মল্লিক বলেন, দুই ছেলের মারধরের ঘটনায় স্বামী-স্ত্রী শনিবার ইউনিয়ন পরিষদে অভিযোগ করে। তখন দুই ছেলেকে নোটিশ করা হয়। তাদের ওই দিন দুই ছেলেকে ডেকে শুনানীর দিন ধার্য্য করা হয়। ইউপি চেয়ারম্যান বলেন, কি কারনে তাদের মারধর করা হয় জানতে শুনানীর দিন ধার্য্য করা হয়। কিন্তু শুনানীর আগে ওই দিন সন্ধ্যায় অভিযোগ দেয়ায় দুই ছেলে মাকে পিটিয়েছে। খবর পেয়ে সন্ধ্যার পর লোকজনের মাধ্যমে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। বর্তমানে সেখানে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

উজিরপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ডা. হামিন সুলতানা বলেন, ছেলের মারধরে শারিরীকভাবে তেমন অসুস্থ নয়। মানসিকভাবে ভেঙ্গে পড়েছে। হাসপাতালে এসেছেন আশ্রয়ের জন্য। এখানে তিনি নিজেকে নিরাপদ মনে করছেন। এখান থেকে তিনি যেতে চাচ্ছেন না।
উজিরপুর মডেল থানার ওসি কামরুল হাসান বলেন, আমি ঘটনাটি শুনে হাসপাতালে পুলিশ পাঠিয়েছি। দোষীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। ##