শফিক শাহিন,বানারীপাড়া প্রতিনিধি॥

মেরী চৌধুরী যিনি দুঃখ কষ্ট ও দারিদ্রতার সাথে সংগ্রাম করে চলে গেলেন পরপারে । বিবাহের পর থেকেই সংসারের ঘানিটেনে কোন রকম জীবন যাপন করতেন। মেরী চৌধুরী বানারীপাড়া উপজেলার বিশারকান্দি ইউনিয়নের দিন মজুর দিভূদান চৌধুরীর স্ত্রী।

খ্রিষ্টান সম্প্রদায়ের এই গৃহবধুর দুটি ছেলে সন্তান রয়েছে, বড় ছেলে অন্তর বয়স ১০ ও ছোট ছেলে দিগন্ত ৪ বছর। এরমধ্যেই মেরী চৌধুরী জটিল কিডনি রোগে আক্রান্ত হয়ে পড়েন।
বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা করিয়ে সহায় সম্বল বলতে যা কিছু ছিলো তার আগেই শেষ করেছেন তার স্বামী দিভূদান। জীবনের শেষ মুহুর্তে নিয়ে এসেছিলেন বানারীপাড়া উপজেলা ৫০ শয্যা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে।
সেখানে চিকিৎসারত অবস্থায় শনিবার ১২ ডিসেম্বর রাতে হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেন।
লাশ এ্যাম্বুলেন্সে বাড়িতে নেওয়ার মত টাকা পয়সা ছিলনা তাদের কাছে ছোট বউ গাড়িতে লাশ নিয়ে বিশারকান্দির উদ্যোশ্যে রওনা দিলে ফেরিঘাটে বসে বানারীপাড়া প্রেসক্লাবের সাংগঠনিক সম্পাদক শফিক শাহিনের নজরে আসলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এমন একটি পোষ্ট দেখে পটুয়াখালি জেলার মঠবাড়িয়া থানায় কর্মরত পুলিশের উপ-সহকারী পুলিশ পরিদর্শক মো. জাহিদুল ইসলাম জাহিদ মেরী চৌধুরীর শেষ কৃত্যানুষ্ঠানের জন্য ৩ হাজার টাকা বিশারকান্দির চৌকিদারের মাধ্যমে তার স্বামীর কাছে পাঠিয়ে দেন।
পুলিশের এই অফিসার বানারীপাড়া থানায় কর্মরত থাকাবস্থায় অনেক সামাজিক ও সেবা মূলক কাজ করে মানবতার পুলিশ খেতাবে ভূষিত হয়েছিল।
মানুষের দুঃখ দুর্দশা দেখলে এ এস আই জাহিদ নিজ অর্থায়নে সাহায্য সহযোগীতার হাতে বাড়িয়ে দেন।