উজিরপুর(বরিশাল) ঃ
ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কের উজিরপুরের নতুন শিকারপুর নামক স্থানে বাস-মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে ছয়জন নিহত হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২১ জুলাই) দুপুর ১২টার দিকে এই ভয়াবহ দূর্ঘটনা ঘটে। এতে ঘটনাস্থলে একজন ও হাসপাতালে নেওয়ার পরে আরও ৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। নিহতরা সকলেই পুরুষ এবং মাইক্রোবাসের যাত্রী। এ সময় ২০ জন আহত হয়। নিহতরা হলেন- মো. রুহুল আমিন (৪৫), আব্দুর রহমান (৪৬), মো. হাসান (৩৬), নুরুল আমিন (৪২), মো. শহিদুল ইসলাম ও হারুন অর রশিদ(৪০)। নিহতরা সবাই গাজীপুর কোনাবাড়ী সিটি কর্পোরেশন ১১ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা । দূর্ঘটনার বিষয়টি নিশ্চিত করে উজিরপুর মডেল থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. মমিন উদ্দিন জানান, ঢাকার গাজীপুর থেকে ১০ জন যাত্রী নিয়ে দূর্ঘটনা কবলিত মাইক্রোবাসটি কুয়াকাটার দিকে যাচ্ছিলো। পথিমধ্যে ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কের ওই দূর্ঘটনাস্থল অতিক্রমকালে যাত্রীবাহী মাইক্রোবাসটির পেছনের ডান পাশের চাকা ফেটে বিপরীত দিক থেকে বরগুনা হয়ে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী মোল্লা ট্রাভেলসের একটি বাসের সঙ্গে মুখোমুখি সংর্ঘষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই একজন ও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়ার পরে আরও তিন জনের মৃত্যু হয়। পরে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পর শহিদুল ইসলাম (৪৫) ও হারুন অর রশীদ(৪০), নামের আরও দুইজনের মৃত্যু হয়। এছাড়া সংঘর্ষে আহতরা হলেন, মাইক্রোবাস যাত্রী লিটন(৩০), আনসার আলী খান(৬০), চালক আছুর উদ্দিন রানা (৫০), মোল্লা ট্রাভেলসের যাত্রী রিমা(২০), লিমা(২৭), ইমরান (২২), শেখ নুরুল ইসলাম (৪০), হামিদা বেগম(৪৬), সুফিয়া বেগম(৪৬) উভয় গাড়ির আহত যাত্রীকে উদ্ধার করে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। প্রত্যক্ষদর্শী মিরাজ হাওলাদার ও খোকন জানান, মাইক্রোবাসটির পেছনের ডান পাশের চাকা বিকট শব্দে ফেটেনিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেললে বিপরীত দিক থেকে বরগুনা হয়ে ছেড়ে আসা মোল্লা ট্রাভেলস(ঢাকা-মেট্রো-ব- ১৩-০৫৪৮) একটি যাত্রীবাহী বাসের সাথে গাজীপুর কোনাবাড়ী থেকে আসা মাইক্রোবাস (ঢাকা-মেট্রো-চ-২৯-২৬৫৩)সংঘর্ষ হয়। দুমড়ে-মুচড়ে যায় মাইক্রোবাসটি ও ক্ষতিগ্রস্থ হয় যাত্রীবাহী বাসটির সামনের অংশ। এরপরে ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কে দীর্ঘ ১ ঘন্টা যানজটের সৃষ্টি হয়। উজিরপুর থানা পুলিশ, গৌরনদী হাইওয়ে পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে যোগাযোগ ব্যবস্থা স্বাভাবিক করে। গাজীপুর এলাকার মাইদুল ইসলাম ও সেলিম সরদার জানান, আমরা ৯৬ ব্যাচ গাজীপুর থেকে কুয়াকাটার উদ্দেশ্য সকালে রওয়ানা দিয়েছি। আমাদের সাথে একই এলাকার ১০ জন মাইক্রোবাস যোগে কুয়াকাটা আসতেছিলো। পথিমধ্যে মাইক্রোবাসের চাকা ফেটে যাওয়ায় এই দূর্ঘটনা ঘটে। নিহতরা সবাই মাইক্রোবাসের যাত্রী ছিল এবং সিটি কর্পোরেশন ১১ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা বলে নিশ্চিত করেন। ঘটনাশুনে তাতক্ষনিক ছুটে যান উজিরপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আঃ মজিদ সিকদার বাচ্চু, পৌর মেয়র মোঃ গিয়াস উদ্দিন বেপারি, নির্বাহী কর্মকর্তা ফারিহা তানজিন। এসময় তারা সংঘর্ষে নিহতদের খোঁজ খবর ও আহতদের সুচিকিৎসার ব্যবস্থা করেন। গৌরনদী হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ বেল্লাল হোসেন জানান , ‘দূর্ঘটনা কবলিত বাস ও মাইক্রোবাস দুটি পুলিশ হেফাজতে রয়েছে। বাস চালক ও হেলপার পলাতক থাকায় তাদের গ্রেফতার করা যায়নি। নিহতদের উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে