লালমনিরহাট সদর উপজেলার দূরাকুটি বাজারের রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংকের সামনে মানসিক ভারসাম্যহীন এক যুবককে গাছে বেঁধে অমানবিক নির্যাতন করছে কয়েকজন পাষণ্ড। তাদের মারধরে ওই যুবক চিৎকার করলেও তার সাহায্যে এগিয়ে আসেনি কেউ। উপস্থিত লোকজন ঘটনার প্রতিবাদ না করে সে দৃশ্য দেখছেন, ভিডিও করেছেন। এমন একটি ভিডিও বুধবার সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে নিন্দার ঝড় ওঠে।

মানসিক ভারসাম্যহীন ওই যুবকের নাম আমিনুল ইসলাম (২৪)। তিনি লালমনিরহাট সদর উপজেলার পূর্ব দোলজোর সাকোয়ার পাড় গ্রামের নূর ইসলামের ছেলে। বুধবার সকালের এ ঘটনায় ওই যুবকের মা মমেনা বেগম বাদী হয়ে চার জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত আরও ৪-৫ জনকে আসামি করে লালমনিরহাট থানায় মামলা দায়ের করেন। পরে ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়া ভিডিও দেখে বৃহস্পতিবার বিকেলে ইসমাইল হোসেন (৬৩) ও মন্‌জুর আলম (৪০) নামে মামলার দুই আসামিকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, আমিনুল ইসলাম জন্মগতভাবে মানসিক ভারসাম্যহীন। দূরাকুটি বাজারসহ বিভিন্ন এলাকায় পাগলের মতো ঘোরাফেরা করেন আমিনুল। রাতে রাস্তা বা হাটবাজারে অবস্থান করেন তিনি। এলাকার লোকজনকে মেরেছেন তিনি- এমন অভিযোগে বুধবার সকালে দূরাকুটি বাজারের একটি গাছে তাকে রশি দিয়ে বাঁধে আসামিরা। পরে তাকে লাঠি দিয়ে বেদম মারধরে করে।

মোগলহাট ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান সমকালকে জানান, দীর্ঘদিন ধরে ওই যুবক দূরাকুটি বাজার এলাকায় অবস্থান করেন। তিনি মানসিকভাবে ভারসাম্যহীন।

এ ব্যাপারে লালমনিরহাট সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এরশাদুল আলম বলেন, ভিডিও দেখে পুলিশ তৎপর হয়। পরে দোষীদের শনাক্ত করে গ্রেপ্তার করা হয়। এ ঘটনায় ওই যুবকের মা বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছেন।