স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, দেশে যারা বয়স্ক মানুষ রয়েছে, ফ্রন্ট লাইন ওয়ার্কার হিসেবে যে সমস্ত ডাক্তার, নার্স, সরকারি কর্মকর্তা এবং সাংবাদিকেরা কাজ করে যাচ্ছেন তাদের বুস্টার ডোজ দেওয়ার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। বুস্টার ডোজ দেওয়ার যাবতীয় কার্যক্রম চলমান রয়েছে, প্রধান মন্ত্রী বুস্টার ডোজ দেওয়ার জন্য অনুমোদন দিয়েছেন।

সুরক্ষা অ্যাপ আপডেটের কার্যক্রম চলমান রয়েছে এবং বুস্টার ডোজ দেওয়ার তালিকা তৈরি করা হচ্ছে।
শুক্রবার (১৭ ডিসেম্বর) সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে মানিকগঞ্জ সদর উপজেলার শুভ্র সেন্টারে পিঠা-পুলি উৎসব ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথির বক্তব্য এসব কথা বলে স্বাস্থ্য মন্ত্রী জাহিদ মালেক।

মন্ত্রী বলেন, আগামী রোববার বা সোমবার থেকে ট্রায়াল বুস্টার ডোজের টিকা দেওয়া শুরু করা হবে। দেশে ভ্যাকসিনের কোনো অভাব নেই। বাংলাদেশে এ পর্যন্ত সাত কোটি সিঙ্গেল ডোজ এবং সাড়ে চার কোটি ডাবল ডোজ টিকা দেওয়া হয়েছে। দেশে এখন সাত লাখ ফাইজার ভ্যাকসিনের টিকা হাতে আছে। আগামী মাসে আরও দুই কোটি টিকা আসবে। সব ভ্যাকসিন মিলিয়ে দেশে এখন পৌণে পাঁচ কোটি ভ্যাকসিন রয়েছে বলে জানান মন্ত্রী।

পিঠা-পুলি ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন- জেলা প্রশাসক আবদুল লতিফ, পৌর মেয়র রমজান আলী, সাটুরিয়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুল মজিদ ফটোসহ অনেকেই এসময় উপস্থিত ছিলেন।