উজিরপুর প্রতিনিধিঃ দীর্ঘ প্রায় দেড় বছর পর পাঠদান কার্যক্রম শুরু হওয়ায় শিক্ষার্থীদের পদচারণায় প্রাণচাঞ্চল্য হয়ে উঠেছে উজিরপুর উপজেলার প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক স্তরের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলো। দীর্ঘদিন পর শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আসতে পেরে উচ্ছাসিত শিক্ষার্থীরা। শিক্ষার্থীদের উৎসাহ দিতে ব্যাতিক্রমি উদ্যোগ গ্রহন করেছে ওটরা ইউপি চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা এম এ খালেক রাঢ়ী। রবিবার সকাল ১০ টা থেকে দুপুর ১ টা পর্যন্ত ওটরা ইউনিয়নের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে গিয়ে আগত শিক্ষার্থীদের উৎসাহ যোগাতে তাদেরকে ফুল দিয়ে বরন করে নেয় এবং সরকারের নির্দশনা অনুযায়ী শিক্ষার্থীদের মাঝে মাস্ক, হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরন করেন। যোগিরকান্দা এ কে এম মোস্তাফিজুর রহমান মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ভরপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক ইসরাত জাহান রুমা জানান, দেড় বছর পর স্কুল খুলে দেওয়ায় স্কুলে আগত শিক্ষার্থীদের সাথে আনন্দ ভাগাভাগি করতে নবনির্বাচিত ইউপি চেয়ারম্যান খালেক রাঢ়ী শিক্ষার্থীদেরকে ফুল দিয়ে বরন করে নিয়েছেন এবং তাদেরকে মাস্ক, হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরন করে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। তার এব্যাতিক্রম উদ্যোগকে সাধুবাদ জানাই। যোগিরকান্দা আঃরব ফাজিল মাদ্রাসা সুপার মাওলানা ইলিয়াস জানান, কোন জনপ্রতিনিধি যে এভাবে শিক্ষার্থীদের আপন করে নিবে বুঝতে পারিনি। ইউপি চেয়ারম্যান শিক্ষার্থীদের ফুল দিয়ে বরন, মাস্ক বিতরন এবং তাদেরকে মিষ্টিমুখ করান। এটা আসলেই প্রশংসার দাবীদার। ইউপি চেয়ারম্যান খালেক রাঢ়ী জানান, দীর্ঘদিন স্কুল কলেজ বন্ধের পর পুনরায় শিক্ষার্থীরা স্কুলে আসায় আমার কাছে খুব আনন্দো লেগেছে। তাই কোমলমতি শিক্ষার্থীদের সাথে আনন্দ ভাগাভাগি করতে তাদেরকে ফুল দিয়ে বরন, মাস্ক, হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরন এবং মিষ্টি মুখ করিয়েছি।