উজিরপুর(বরিশাল)প্রতিনিধিঃ বরিশাল জেলার উজিরপুর উপজেলার সাতলায় কয়েকটি স্পটে চলছে অবাধে জমজমাট জুয়ার আসর ও মাদক সেবন। গোপনে জুয়া ও মাদক সেবনের ভিডিও করায় জুয়ারিদের হাতে হামলার স্বীকার হয়েছে এক যুবক। জুয়ারীদের হামলায় আহত দক্ষিণ সাতলার জাকির মিয়ার ছেলে গোলাম রাব্বী(১৮)। এ ঘটনায় গত মঙ্গলবার উজিরপুর মডেল থানায় আহতর পিতা জাকির মিয়া বাদী হয়ে ৬জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত ২/৩ জনকে আসামী করে অভিযোগ দায়ের করে। অভিযোগ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গত ১৩ সেপ্টেম্বর সোমবার রাত ৯টার সময় ৬নং ওয়ার্ডের দক্ষিণ সাতলা গ্রামের মৃত. নূর হোসেন মিয়ার ছেলে ওয়াদুত মিয়া(৪০)’র বাড়িতে তিনি সহ স্থানীয় আবু সাইয়েদ(৩৫), মোঃ আনোয়ার বিশ্বাস(৩৮), কাওসার মিয়া(২৬), ফয়সাল সরদার(২৫), নাজমুল(১৮) মিলে জুয়ে খেলতে ছিল। জুয়া খেলার সংবাদ পেয়ে গোপনে ভিডিও করে একই এলাকার জাকির মিয়ার ছেলে গোলাম রাব্বি। ভিডিওর বিষয়টি টের পেলে উল্লেখিত জুয়ারিরা গোলাম রাব্বির উপর অতর্কীত হামলা চালায়। এসময় স্থানীয় লোকজন এগিয়ে আসলে জুয়ারীরা পালিয়ে যায়। নাম প্রকাশ্যে অনিচ্ছুক স্থানীয়একাধিক ব্যক্তি জানান, রাজনৈতিক নেতা ও প্রশাসনকে ম্যানেজ করে তিন কার্ডের জুয়া চলছে। দুর-দূরান্ত থেকে আসা জুয়াড়িরা এখানে এসে নির্বিঘ্নে সকাল থেকে রাত পর্যন্ত লাখ লাখ টাকার জুয়া খেলছে ও মাদক সেবন করছে। জুয়া খেলার চক্রের ফাঁদে পড়ে অনেকেই টাকা খুইয়ে হয়েছেন নিঃস্ব। চলমান জুয়া ও মাদকের আসর নিয়ে এলাকাবাসী উদ্ধিগ্ন হয়ে পড়েছেন। এলাকার উঠতি যুবক, আলোচিত জুয়াড়িরা এখানে হুমড়ি খেয়ে পড়ছে। এব্যাপারে রাব্বি’সহ তার বন্ধুরা বলেন, “বাড়ির পাশে নিয়মিত জুয়ার আসর বসানো হয়, তাই গোপনে ভিডিও করতে গেলে বুঝে ফেলে জুয়ারিরা আমাদের উপর হামলা চালায় ও মারধর করে।” অন্যদিকে অভিযুক্ত জুয়ার আসরের ঘর মলিক ওয়াদুত মিয়া বলেন, “পাশের জঙ্গলেই খেলা হয়, মানা করলেও কেউ শোনে না, তবে বৃষ্টির কারনে আমার বাসার পিছনে বসছে তারা, এরমধ্যে রাব্বি সহ বহিরাগত পোলাপান খোট খাওয়ার জন্য আসে, মোবাইল টাকা ছিনিয়ে নিয়ে মারধর করে।” গত ১৪ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার উজিরপুর মডেল থানায় গোলাম রাব্বীর পিতা মোঃ জাকির হোসেন মিয়া বাদী হয়ে অভিযোগ দায়ের করেন। এব্যাপারে সাতলার ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ শাহীন হাওলাদার বলেন, ঘটনাটি জেনেছি এবং ভিডিও দেখেছি এতে আমি মনে করি দুই গ্রুপই অপরাধী। এব্যাপারে উজিরপুর থানা অফিসার ইনচার্জ আলী আর্শাদ জানান, তদন্ত সাপেক্ষ দোষীদের আইনের আওতায় আনা হবে।