সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় ঋণের সুদ দিতে না পারায় এক গৃহবধূকে গাছের সঙ্গে বেঁধে নির্যাতন করা করেছে।সুদের টাকা দিতে না পারায় ঋণদাতা এ ঘটনা ঘটান বলে স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছে।

বুধবার দুপুরে উল্লাপাড়া পৌরসভার এনায়েতপুর আদর্শগ্রামে এ ঘটনা ঘটে। পরে পুলিশ গিয়ে নির্যাতনের শিকার ওই গৃহবধূকে উদ্ধার করেন।

গৃহবধূর নাম সোমা রানী দাস। তিনি ওই গ্রামের সঞ্জীব দাসের স্ত্রী। তাকে গাছে বেঁধে নির্যাতনের ভিডিওটি এরই মধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে।

সোমা রানী দাস বলেন, আদর্শগ্রামের আব্দুল কাদেরের মেয়ে দিপ্তী বেগম দীর্ঘদিন ধরে সুদের ব্যবসা করে আসছেন। তিনি গ্রামের অত্যন্ত প্রভাবশালী ব্যক্তি। কিছুদিন আগে সোমা দিপ্তীর কাছ থেকে ৫০ হাজার টাকা ঋণ গ্রহণ করেন। আর্থিক অস্বচ্ছলতার কারণে সোমা সময়মতো সুদের টাকা পরিশোধ করতে না পারায় দিপ্তী বেগম তার লোকজন নিয়ে বুধবার তাকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে গাছের সঙ্গে বেঁধে নির্যাতন করেন। এসময় সোমার কাছে আরো ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করে দিপ্তী। সোমাকে নির্যাতনের চিত্রটি ভিডিও ধারণ করেন স্থানীয় যুবকেরা।

ঘটনাটি জানতে পেরে উল্লাপাড়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দীপক কুমার দাশ জানান, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে সোমাকে উদ্ধার করেছে। এসময় দিপ্তী বেগমকে আটক করা হয়। নির্যাতনের শিকার ওই গৃহবধূ দিপ্তী বেগম ও তার লোকজনের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির মামলা করার প্রস্তুতি নিচ্ছেন।