ইনজেকশন নেয়া বা শরীরে সূঁচ ঢোকানোয় অনেকেরই আলাদা ভীতি রয়েছে। সূঁচ ব্যবহারে থাকে জীবাণু সংক্রমণের ঝুঁকিও। এসব ভয় ও ঝুঁকির কথা বিবেচনায় বিজ্ঞানীরা সূঁচমুক্ত ভ্যাকসিন প্রয়োগের পদ্ধতি নিয়ে গবেষণা করছেন বহুদিন ধরেই। ইতোমধ্যেই ইনহেলার দিয়ে নিঃশ্বাসের মাধ্যমে ভ্যাকসিন প্রয়োগের কথা শুনেছি। এবার সূঁচ ছাড়া সরাসরি ত্বকের মধ্য দিয়েই ভ্যাকসিন প্রয়োগের পদ্ধতি আবিষ্কার করেছেন অস্ট্রেলিয়ার বিজ্ঞানীরা।

অস্ট্রেলীয় টেলিভিশন সেভেন নিউজ জানিয়েছে, সম্প্রতি সিডনি ইউনিভার্সিটির বিশেষজ্ঞরা ডিএনএ-ভিত্তিক একটি করোনা ভ্যাকসিন তৈরি করেছেন, যা সূঁচ ছাড়াই ব্যথামুক্ত পদ্ধতিতে ত্বকের ভেতর প্রয়োগ করা হবে। এর জন্য ব্যবহার করা হচ্ছে বাতাসের জেট ইনজেকশন।

গবেষকরা জানিয়েছেন,‘ফার্মাজেট’ নামে সূঁচমুক্ত এ প্রক্রিয়ায় তীব্রগতির তরল প্রবাহের মাধ্যমে ত্বকের ভেতর দিয়ে ভ্যাকসিন প্রয়োগ করা হবে। মানুষের ত্বকই হচ্ছে সবচেয়ে বড় রোগপ্রতিরোধী মাধ্যম। সেটির মধ্য দিয়ে সরাসরি ভ্যাকসিন প্রয়োগের কারণে এই পদ্ধতিতে অন্যান্য ভ্যাকসিনের তুলনায় বেশি কার্যকর ফল পাওয়া যাবে বলে আশা করছেন বিজ্ঞানীরা।

গবেষক ডা. জিন্নি ম্যানসবার্গ জানান, এই জেট ইনজেকশন অনেকটা চুলের মতো সরু, যা সরাসরি ত্বকের ভেতর দিয়ে চলে যাবে। ফলে এটি ভ্যাকসিন গ্রহীতাদের সূঁচের যন্ত্রণা থেকে মুক্তি দেবে।

ইতোমধ্যেই এই ভ্যাকসিনের কার্যকারিতা প্রমাণে তিন মিলিয়ন ডলার (অস্ট্রেলীয়) অনুদান দিয়েছে অস্ট্রেলিয়া সরকার। এ সপ্তাহেই ১৫০ স্বেচ্ছাসেবকের ওপর ভ্যাকসিনটির ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল শুরু হওয়ার কথা।